অ্যালোভেরা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় - Ways to whiten with aloe vera

অ্যালোভেরা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় - Ways to whiten with aloe vera/অ্যালোভেরা দিয়ে চুলের যত্ন/লেবু দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়/শসা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উ

ত্বক ভালো রাখতে অ্যালোভেরা কোন বিকল্প নেই। প্রাকৃতিক এই উপাদানটি অ্যালোভেরা টি আপনার ত্বকের একটি অংশ হতে পারে। অ্যালোভেরা তে প্রচুর পরিমাণ এন্টি ওকসাইড থাকার কারনে বিউটি প্রোডাক্ট থাকার কারনে অ্যালোভেরা জনপ্রিয়তা ফাটল ধরে নাই। অ্যালোভেরা আমাদের ত্বকের পাশাপাশি আমাদের ত্বকের অনেক সমস্যা সমাধান করে তার পাশাপাশি আমাদের দেহের অনেক উপকার করে থাকে। এলোভেরা সব ধরনের ত্বকে ব্যবহার করা যায়। কোন প্রকার সমস্যা হয় না। কিন্তু ত্বক অনুযায়ী অ্যালোভেরা ব্যবহার একটু ভিন্ন হতে পারে ।এই কথাটা একটু সবাই মাথায় রাখবেন। Bangla Health Tips

তৈলাক্ত শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে আপনার ত্বক ফর্সা আর সমস্যা থাকলে তা সমাধান হবে। যদি ফর্সা ও সুন্দর হতে চান তাহলে অবশ্যই অ্যালোভেরা ব্যবহার করতে শিখুন তাহলে আপনারা খুব সহজে সুন্দর হতে পারবেন। আপনাকে সর্ব  প্রথম অ্যালোভেরা  ডাল বা জেল নিয়ে এসে আপনার মুখে প্রতিদিন একি সময় লাগান।কিছু দিন পর বা কয়েক দিন পর দেখবেন আপনার মুখ ফর্সা হয়ে যাবে। অ্যালোভেরা দিয়ে খুব সহজে ফর্সা হওয়া যায় অন্যান্য উপাদান ছাড়াই। Bangla Health Tips

অন্য পোষ্ট পড়তে চাইলে এখানে ক্লিক করুনঃ ডায়াবেটিসের লক্ষণ ও প্রতিকার করার উপায়

অ্যালোভেরা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় - Ways to whiten with aloe vera

চাল দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

চাল দিয়ে ফর্সা হওয়া যায় এই কথাটি অনেকেই জানেনা। কিন্তু চাল সাথে আরেকটি উপাদান ব্যবহার করতে হয় সেটি হলো লেভু। চেহারা থেকে কালো দাগ মুছে ফেলার জন্য লেবু সব থেকে বেশি প্রভাব ফেলে।তার কারন হল লেভু তে ভিটামিন সি আছে যা দাগ দূর করতে সক্ষম হয়।এই দুটো উপাদান মিক্স করে আপনি যদি আপনার শরীলে মিক্স করে লাগান তাহলে আপনি আগের থেকে ফর্সা হতে পারবেন।

চাল দিয়ে আমরা ভাত রান্না করে খেয়ে থাকি। কিন্তু চাল ধোয়ার পানি দিয়ে আমরা আমাদের ত্বকের যত্ন নিতে পারি। চালের পানি আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী একটি বিষয় বা উপাদান ব্যবহার করলে ত্বক ফর্সা হওয়ার উপায় থাকে কিছুটা।

বর্তমান সময়ে অনেক মেয়েরা আছে তাদের বয়স বেশি হয়ে যায় বা তাদের বয়স বেশি না হয়তো তাদের চেহারা থেকে বয়স বেশি বেশি দেখা যায়। এটা ঘটনার জন্য তারা এই চালের পানি ব্যবহার করে থাকে। চালের পানি ব্যবহার করার করলে আপনার চেহারা দ্রুত পরিবর্তন আসবেই তার কোনো বিকল্প নেই বা কোনো ক্ষতি নেই। 

বর্তমান সময়ে অনেক মেয়েরা আছে তাদের বয়স বেশি হয়ে যায় বা তাদের বয়স বেশি না হয়তো তাদের চেহারা থেকে বয়স বেশি বেশি দেখা যায় এটা দুর্ঘটনার জন্য তারা এই চালের পানি ব্যবহার করে থাকে চালের পানি ব্যবহার করার করলে আপনার চেহারা দ্রুত পরিবর্তন আসবেই তার কোনো বিকল্প নেই বা কোনো ক্ষতি নেই। Bangla Health Tips

আপনারা যদি চালের পানি ব্যবহার করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে একটি বাটিতে চা চামচের চার চামচ চাউল নিয়ে আট চামচ পানি নিয়ে ৫মিনিট রেখে দিবেন তারপর দেখতে পারবেন চাউল এর পানি টা কি রকম দুধের মত সাদা হয়ে গেছে এই পানিটা সাথে হালকা লেবু মিশিয়ে নিবেন আর মধু মিশিয়ে নিবেন। তারপর আপনার যে অংশে কালো দাগ আছে সেই অংশে ব্যবহার করে নিন অবশ্যই ব্যবহার করার আগে আপনি আপনার সেই অংশে ভালো ভাবে দুয়ে নিবেন আর ব্যবহার করবেন।দেখবেন আপনার সমস্যাটি ধুর হয়ে যায়

আলু দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

আলু দিয়ে খুব তাড়াতাড়ি আপনার দেহের কালো দাগ দূর করে দেওয়া একটি অন্যতম উপাদান। আলু দিয়ে কিভাবে আপনি আপনার ত্বককে কালো বা ফর্সা করে নিতে পারেন। আলু দিয়ে প্রথমে যে কাজটি করবেন সেটি হল আলোকে গোল গোল করে কেটে আপনার মুখে লাগিয়ে দিবেন আর যে অংশে দাগ আছে সেই অংশের ব্যবহার করতে থাকবেন। তাহলে দেখবেন আপনার মুখে দাগ গুলো খুব সহজে উঠে যাবে। 

আলুর রস আমাদের ত্বকের জন্য অনেকটা উপকার। আলুর রসের মাধ্যমে আমাদের স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়া বা কালো দাগ দূর করা যায় খুব সহজে। আলুর রস এতটাই উপকারী যা বলে প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি।

আলুর রস করার জন্য আপনাকে সর্ব প্রথম আলোকে কেটে ব্লেন্ডার দিয়ে রস করে নিতে হবে। রস করার পর আপনাকে সে ছাকনা দিয়ে ছেকে আপনাদেরকে একটি বাটির ভিতরে রাখতে হবে বাতির ভিতর রাখার পর আপনাকে একটা চামচ বেসন দিতে হবে। কালো দাগ দূর করার জন্য বেসনের কি উপকারী জিনিস খুব সহজে কালো দাগ দূর করা সহায়তা করে থাকে। 

আলুর রস ও বেসন ও তার সাথে কিছু পরিমাণ গোলাপ জল দিতে হবে। গোলাপ জল আর আমাদের দেহের বলিরেখা দূর করা সাহায্য করে থাকে। গোলাপ জল আমাদের দেহের ভিতর গোলাপী একটা আহরণ এনে দেয়। যদি আপনাদের কাছে গোলাপ জন না থাকে তাহলে সংগ্রহ করে দিতে পারে আর যদি না দিতে চান তাহলে কোন প্রকার সমস্যা নেই। 

আলুর রস বেসন ও গোলাপ জল একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে। মিশানোর পর একটা বিষয় লক্ষ করতে হবে যে হালকা হয়েছে কিনা,যদি হালকা না হয়ে থাকে তাহলে আর একটু পানি দিয়ে তিনটি উপাদান হালকা পানির মত করে নিবেন। তারপর আপনার যে অংশে কালো দাগ রয়েছে সে অংশে ব্যবহার করুন আর এটি দীর্ঘ সময় ব্যবহার করলে আপনি স্থায়ী ভাবে ফর্সা হয়ে যাবেন।

শসা দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

কালো দাগ দূর করার জন্য আরেকটি উপাদান হলো শসা। শসা ব্যবহার করার মাধ্যমে কালো দাগ দূর করা যায় আর স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়া যায়। সব প্রথম আপনাকে শসা গোল করে কেটে নিতে হবে তার পর গোল করা শসার সাথে চিনি মিশিয়ে আপনার শরীলের ভিতরে যে অংশে কালো দাগ রয়েছে সেই অংশে গিয়ে ডলতে হবে তার পর দেখবে আসতে আসতে আপনার কালো গাদ ওঠে যাবে আর আপনিই ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন আর বুঝতে পারবেন কতটা পরিবর্তন হয়েছে আপনার ত্বকে।

শসার রস আমাদের দেহের জন্য অনেকটাই উপকারী। যা আমাদের ফর্সা হওয়া কাছে দেয়। আমাদের দেহের কালো দাগ দূর করার জন্য অনেকটাই কাজে দেয়। আপনারা ফর্সা হওয়ার জন্য এই টিপস টি ব্যবহার করতে পারেন। যারা ফর্সা হতে চান তারা এই কাজটি করেন আর তারা তারী ফর্সা হয়ে যান।

লেবু দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

ফর্সা হওয়ার জন্য দ্রুত কাজ করে সেটি হল লেবু। লেবু আমাদেরকে আমাদের দেহের কালো দাগ খুব সহজে দূর করে দেয়। যা অন্যান্য উপাদানের থেকে একটু তাড়াতাড়ি তাই ফর্সা হওয়া যায়। সকল উপাদান এর ভিতর লেবুর উপাদান মিক্স করতে হয় তা না হলে তাড়াতাড়ি ফর্সা হওয়া যায় না তাই লেবুর উপাদান অসীম।

লেবুতে ভিটামিন সি রয়েছে তার পাশাপাশি ক্ষারক। যার দ্বারা যে কোনো দাগ খুব সহজে দূর করা যায়। তাই লেবুর এত অবদান দাগ দূর করার জন্য।

গরমে ফর্সা হওয়ার উপায়

গরমের দিনে আমাদের ত্বক আদ্রতা নষ্ট হয়ে যায়। গরমের দিনে আমাদের চেহারা কালো হয়ে যায়। গরমের দিনে আমাদের ত্বকের সাথে ধুলাবালী একটি কাছের জিনিস যা আমাদের প্রতিটা সেকেন্ডের সাথে জড়িত আছে। গরম আসলেই গরমের কারনে আমাদের দেহতে প্রচুর পরিমান গাম হয়,এই গ্রাম থেকে আমাদের অনেক সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যা গুলো থেকে আমাদের ত্বক ঠিক রাখা অনেক কঠিন হয়ে দাড়ায়।

গরমে ফর্সা হওয়ার ফেসিয়ালঃ
গরমে নিজের ত্বককে ফর্সা রাখার জন্য আমাদের একটি নিয়ম মেনে চলতে হবে। আমাকে প্রথমে একটি পরিষ্কার বাটির ভিতরে এক চা চামচ টুথ পেষ্ট নিতে হবে। টুথ পেষ্ট আমাদের দাতের জন্য যেমন উপকারী তেমনি আমাদের ত্বক ফর্সা বা সুন্দর হওয়ার ও কাজে আসে। টুথ পেষ্ট এর সাথে চিনি নিতে হবে আর তার সাথে লেভু নিতে হয়। এই উপাদান গুলো ভালো করে মিছিয়ে নিতে হবে। মিশানোর পর হয়ে গেলো গরমে ফর্সা ফেসিয়াল। যা আমাদের ত্বকের কালো দাগ সহজে দূর করতে পারে কোন প্রকার জামেলা ছাড়ায়।

ঘরোয়া উপায়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

ঘরোয়া উপায়ে ফর্সা হওয়া যায় এই কথাটি পুরোপুরি সত্য। আপনি যদি ঘরোয়া উপায়ে ফর্সা না পারেন তাহলে কোন ভাবেই ফর্সা হওয়া সম্ভব না। ঘরোয়া উপায়ে সু্ন্দর হওয়ার জন্য আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে আর তা না হলে পারবেন না। ঘরোয়া উপায়ে সুন্দর হওয়ার জন্য প্রাকৃতিক উপাদান এর মাধ্যমে হতে হবে। ঘরে বসে যদি প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে থাকেন আর ফসা বা সুন্দর হয়ে যাবেন।

আপনি যদি ঘরে বসে প্রতি দিন অ্যালোভেরা তার সাথের চালের পানি আর শসা ও লেভু ইত্যাদি প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি সুন্দর হয়ে যাবেন। এই জিনিস গুলো ব্যবহার করলে আপনি অবশ্যই ফসা হবেন আর নিয়মিত আপনার দেহ কে পরিষ্কার করে রাখবেন আর যন্ত নিবেন তা না হলে আপনি সুন্দর হতে পারবেন না।

ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করে অনেকেই দিন দিন ফর্সা ও সুন্দর হয়ে যাচ্ছে। আপনারা ও এই টিপস বা ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করতে পারেন।

অ্যালোভেরা দিয়ে চুলের যত্ন

অ্যালোভেরা আমাদের দেহের জন্য অনেক উপকারী। যেমন আমরা একটি আমাদের ত্বক সুন্দর করার জন্য ব্যবহার করতে পারি আমাদের যদি পেটের সমস্যা হয় বা গ্যাস জাতীয় কোন সমস্যা থাকে তাহলে ব্যবহার করতে পারি বাসেতে পারি আর যদি আমাদের চুল পড়ে যায় বা চুলের সমস্যা হয় চুলে খুশকি হয় । এই সব সমস্যা দেখা দিলে আমরা অ্যালোভেরা ব্যবহার করতে পারি। 

যাদের চুলের সমস্যা আছে তারা অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করলে চুলের শুস্ক ও চুলকানি দূর করা যায় তার সাথে খুশকির সমস্যা টি দূর করা যায়।অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করার মাধ্যমে।

অ্যালোভেরা আমাদের দেহের ওজন কমানোর জন্য সাহায্য করে থাকে। অ্যালোভেরা খেলে আমাদের দেহের মেদ কমাতে সাহায্য করে। যাতে আমাদের দেহের ওজন কমে যায় ধীরে ধীরে। যারা অনেক মোটা স্বাস্থ্য কমাবে যাচ্ছেন ওজন কমাতে চান তারা অ্যালোভেরা খেতে পারেন।

যারা স্বাস্থ্য সম্পর্কে বা রুপর্চচা সম্পর্কে আরো তথ্য জানতে চান তারা আমাদের ব্লগটির সাথেই থাকুন আর বিভিন্ন জায়গাতে শেয়ার করোন তাতে অন্যরা যেনো জানতে পারে।
LihatTutupKomentar